৩৫০০ হাজার রুশ সেনা হত্যার দাবি ইউক্রেনের

রাজধানী কিয়েভসহ ইউক্রেনের সর্বত্র ভারী অস্ত্রে সজ্জিত রুশ সেনাদের দেখা যাচ্ছে ।

ইউক্রেনে রুশ হামলার তৃতীয় দিনেও চলছে সংঘর্ষ চলছে। এরইমধ্যে সাড়ে ৩ হাজার রুশ সেনা নিহতের দাবি করেছে ইউক্রেন। এদিকে রাজধানী কিয়েভে রাজপথে অবস্থান নিয়েছে রুশ সেনারা। ইউক্রেনের একটি শহরও দখলে নিয়েছে বলে তাদের দাবি।

আজকের রাতটিকে কঠিন উল্লেখ করে ইউক্রেনের স্বাধীনতা রক্ষায় শেষ পর্যন্ত লড়াইয়ের অঙ্গীকার করেছেন ভলোদিমির জেলেনস্কি। রুশ আগ্রাসনের নিন্দা জানাতে নিরাপত্তা পরিষদের যুক্তরাষ্ট্রের আনা প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে রাশিয়া। এতে ভোট দেয়নি চীন, ভারত ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

আজ শনিবারও এভাবে জ্বলছিলো কিয়েভের আবাসিক বাড়িগুলো। রুশ সৈন্যরা ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে ঢুকে পড়ায় ওইদিন সকাল থেকে থেমে থেমে কিয়েভে বিস্ফোরণ, গোলাবর্ষণ ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার খবর আসছে।

এই পরিস্থিতিতে এক ভিডিও বার্তায় আত্মসমর্পণের গুঞ্জন অস্বীকার করেছেন ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি বলেন, অনলাইনে অনেক ভুয়া তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে, আমি নাকি সেনাবাহিনীকে অস্ত্র সমর্পণের নির্দেশ দিয়েছি ও নিরাপদ আশ্রয় নিয়েছি। কিন্তু আমি এখানেই আছি। আমরা অস্ত্র ছাড়ব না। দেশকে রক্ষা করব।

ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর দাবি, কিয়েভের একটি সামরিক ঘাঁটিতে রুশ হামলা হামলা প্রতিহত করেছে তারা। রাশিয়ার সাড়ে তিন হাজার সেনা হত্যার দাবিও করেছে ইউক্রেন সেনাবাহিনী। কোনো প্রতিরোধ ছাড়াই ইউক্রেনের মেলিটপোল শহর দখলে নিয়েছে রাশিয়ার সেনারা। আজ শনিবার এমন দাবি করে ক্রেমলিন জানায় শহরে টহলরত রুশ সেনাদের স্বাগত জানাচ্ছে বাসিন্দারা।

অন্যদিকে গতকাল শুক্রবার জাতিসংঘ সদর দপ্তরে রুশ আগ্রসনের বিরুদ্ধে একটি খসড়া প্রস্তাব তোলা হয়। এর পক্ষে ১১টি ভোট পড়লেও পরিষদের স্থায়ী সদস্য রাশিয়ার ভেটোর ফলে তা পাস হয়নি।

শর্টলিংকঃ