শাশুড়ি-শালীকাকে ধর্ষণ মামলায় যুবক গ্রেফতার

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় নিজ শাশুড়ি ও শ্যালীকাকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় রুহুল আমিনকে (২৬) গ্রেফতার করে গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নেয়া হলে আদালত সোমবার তাকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেয়।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের সমসপাড়া গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুই ভিকটিম নিজেরা বাদী হয়ে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছেন বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জানান।

মামলা সূত্রে জানা যায়, রুহুল আমিন তার  শাশুড়ির গোসলরত অবস্থার আপত্তিকর ছবি মোবাইল ফোনে ভিডিও করেন। পরে তা শাশুড়িকে দেখিয়ে সেগুলো ফেসবুকে ছেড়ে দিবার ভয় দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দেন। শাশুড়ি তাতে রাজী না হলে রুহুল আমিন তাকে জোরপূর্বক গত ১৩ মার্চ থেকে শুরু করে গত ৭ জুলাই পর্যন্ত বিভিন্নসময় ধর্ষণ করেন।

অন্যদিকে, একইরকম ঘটনা ঘটিয়ে শালীকাকে ধর্ষণের চেষ্টার ভিডিও করে। পরে ওই শালিকাকে কৌশলে  তার ফুফাতো বোনের বাড়িতে ডেকে নিয়ে ফেসবুকে উক্ত ভিডিও ছেড়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। বিষয়টি র‌্যাব-১৩, গাইবান্ধা ক্যাম্পের নজরে আসে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে র‌্যাব গত রবিবার (২৫ জুলাই) রুহুল আমিনকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাটাখালি বালুয়া বাজারের মুক্তিযোদ্ধা ময়েজউদ্দিন সুপার মার্কেট থেকে আটক করে। এসময় তার কাছ থেকে মোবাইলে ধারণকৃত অশ্লীল ভিডিও ও স্থিরচিত্রসহ মোবাইলফোনটি জব্দ করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আরিফুল ইসলাম বলেন, আসামী রুহুল আমিনকে পৃথক দুই মামলায় ৫ দিনের রিমান্ড আবেদনসহ আদালতে উপস্থাপন করা হয়। বিচারক এ সময় তাকে জেলা কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন এবং রিমান্ড শুনানীর জন্য পরবর্তী দিন ধার্য করা হবে জানান এই পুলিশ অফিসার।

শর্টলিংকঃ