রেল কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ

রাজশাহীতে রেলওয়ের এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুই সন্তানের জননীকে (৩৫) ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। সোমবার রাতে ওই নির্যাতিত গৃহবধূ বাদী হয়ে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় এই মামলা করেছেন।

অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম মঈন উদ্দিন আজাদ (৪২)। তিনি রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টার পদে কর্মরত। নগরীর শিরোইল কাঁচাবাজারে তার বাড়ি। মামলা দায়েরের পর থেকে তিনি আত্মগোপন করেছেন।

নির্যাতিত নারী জানান, ট্রেনে যাতায়াতের পথেই স্টেশন মাস্টার আজাদের সঙ্গে তার পরিচয়। এরপর তাদের মধ্যে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জাওে প্রায়ই কথা হতো। তিনি ওই নারীকে রেলওয়েতে একটি চাকরিও দিতে চেয়েছিলেন। আর বলেছিলেন, চাকরির জন্য আট লাখ টাকা লাগবে। তিনি আগাম দুই লাখ টাকাও নিয়েছেন।

মামলায় বলা হয়, রেলওয়েতে একটি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতিমূলক বই দেয়ার নামে গত রোববার বিকালে (১৭ জানুয়ারি) তার বাসায় ডাকেন। তিনি সরল বিশ^াসে তার বাসায় যান। গিয়ে দেখেন, বাসায় কেউ নেই। ফাঁকা বাসায় মঈন উদ্দিন আজাদ তাকে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন। হাজার চেষ্টা করেও তিনি রেল কর্মকর্তার হাত থেকে সম্ভ্রম বাঁচাতে পারেননি।

ধর্ষণের পর ওই নারীকে রেল কর্মকর্তা হুমকি দেন যে, ঘটনাটি কাউকে জানালে তার বড় ধরণের ক্ষতি করা হবে। কিন্তু তিনি পরদিনই থানায় মামলা করেন। নগরীর বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারন চন্দ্র র্বর্মন জানান, এ ঘটনার পর থেকে মঈন উদ্দিন আজাদ পলাতক। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। মামলাটি তদন্তের একজন উপ-পরিদর্শককে (এসআই) দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মিহির কান্তি গুহ বলেন, মামলার বিষয়টি তিনি জেনেছেন। মঙ্গলবার অভিযুক্ত কর্মকর্তা অফিস করেননি। তাকে অন্যত্র বদলির জন্য তিনি নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানান পশ্চিম রেলের এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

শর্টলিংকঃ