মার্কিন মানবপাচার প্রতিবেদনে এমপি পাপুলের নাম

মানব ও অর্থপাচার এবং ঘুষ দেওয়ার অভিযোগে কুয়েতে কারাবন্দি লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম পাপুলের নাম এসেছে  যুক্তরাষ্ট্রের বার্ষি ক মানবপাচার বিষয়ক প্রতিবেদনেও। বৃহস্পতিবার (২৬ জুন) ৫৭০ পৃষ্ঠার ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এর আগে ৬ জুন কুয়েতের মুশরেফ আবাসিক এলাকা থেকে পাপুলকে গ্রেপ্তার করে দেশটির অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

এতে বলা হয়েছে, কুয়েতি কর্মকর্তাদের ঘুষ দিয়ে ২০ হাজার বাংলাদেশিকে চাকরির প্রলোভন দিয়ে কুয়েতে নিয়ে যান এমপি মোহাম্মাদ শহীদুল ইসলাম পাপুল। কিন্তু সেখানে তাদের যে চাকরি দেওয়ার কথা ছিল, তার সিংহ ভাগকেই তা দেওয়া হয়নি। যে বেতনের কথা বলা হয়েছিল, তারা তার চেয়ে কম বেতন পেয়েছেন বা একদমই পাননি।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়,  মালয়েশিয়ার চাকরিদাতা সংস্থাগুলো বাংলাদেশের ১০টি রিক্রুটিং এজেন্সির সঙ্গে মিলে দুই দেশের কর্মকর্তা ও রাজনীতিবিদদের ঘুষ দিয়ে বাংলাদেশি শ্রমিক পাঠানোর বিষয়টিতে একচ্ছত্র আধিপত্য তৈরি করেছিল। তারা  সরকার নির্ধারিত ফি মাত্র ৩৭ হাজার টাকার স্থলে মালয়েশিয়া যেতে আগ্রহী শ্রমিকদের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা পর্যন্ত আদায় করেছে। এতে বাংলাদেশি অভিবাসী শ্রমিকরা বিপদে  পড়ে  এবং দেনায় জর্জরিত হয়।

প্রসঙ্গত, কুয়েতে গ্রেফতার হওয়ার পর এমপি পাপুলের জামিনের আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক। গত বুধবার পাপুলকে ২১ দিন কারাগারে আটক রাখার নির্দেশ দিয়েছেন কুয়েতের অ্যাটর্নি জেনারেল।

শর্টলিংকঃ