ভালুকায় দুর্ভোগ লাঘবে ভুক্তভোগীদের কাঠের সেতু

শফিকুল ইসলাম সবুজ ভালুকা : ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ঝালপাজা গ্রামের ভুক্তভোগীরা এবার দুর্ভোগ লাঘবে বানাল খীরু নদীর উপর প্রায় দেড়শ ফুট লম্বা কাঠের সেতু। বিশেষ করে হবিরবাড়ি ইউনিয়নের ঝলপাজা উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুকি নিয়ে ছোট ছোট নৌকায় নদী পারাপার হয়ে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করছিল। তাদের প্রাধান্য দিয়ে এ কাঠের সেতু বানানো হয়।

স্থানীয়রা জানান, ছাত্র-ছাত্রীদের পারাপারের কথা বিবেচনা করে খীরু নদীর উপর প্রায় দেড়শ ফুট লম্বা একটি মজবুত কাঠের সেতু নির্মাণ করেছেন। ওই সেতু দিয়ে এখন দল বেঁধে ছাত্র ছাত্রীরা বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করেছে। ঝালপাজা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নাজমুল আলম সোহাগ জানান, খীরু নদীর এ স্থানটিতে একটি সেতুর অভাবে ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার বিঘ্ন ঘটছিল। এ ছাড়াও নদীর পাড়ের ঝালপাজা বাজারে হাজার হাজার মানুষ সপ্তাহে দুদিন হাট করতে আসে। এলাকাবাসী তাদের স্বউদ্যোগে একটি কাঠের ব্রীজ করে দিয়েছেন সত্য কিন্ত কাঠের ব্রীজ বেশীদিন স্থায়ী হয়না। তাই সরকারের কাছে এলাকাবাসীর দাবী উল্লেখিত স্থানে খীরু নদীর উপর একটি আর সি সি ব্রীজ পাকা সেতু নির্মাণ করে শত শত ছাত্র ছাত্রীর লেখাপড়ার সুযোগ সৃষ্টি ও দুই পাড়ের ৮/১০ টি গ্রামের মানুষের চলাচলের পথ সুগম হবে।

এ প্রসঙ্গে হবিরবাড়ী ইউনয়ন চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চু জানান ঝালপাজা হবিরবাড়ী ইউনিয়নের একটি ঐতিহ্যবাহী গ্রাম, বহুকাল পূর্ব হতে এ গ্রামে একটি পুরোনো বাজার, একটি উচ্চ বিদ্যালয় ও প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ মসজিদ মাদ্রাসা সহ একাধিক সামাজিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এখানে কয়েকটি গ্রাম নদীর কূলঘেষা হওয়ায় এলাকাবসী ও ছাত্র ছাত্রীদের নদী পারাপার হওয়ার কারনে বাজার এলাকায় একটি পাকা সেতু অতি জরুরী। শিক্ষা জাতিকে সমৃদ্ধশালী করে, এলাকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে ত্বরান্বিত করতে সুষ্ঠ যোগাযোগ ব্যবস্থার লক্ষে তিনি খীরু নদীর উল্লেখিত স্থানে একটি পাকা সেতু স্থাপনের জন্য প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট বিভাগের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

শর্টলিংকঃ