ব্রিজ আছে রাস্তা নেই, দুর্ভোগে গাইবান্ধার চরাঞ্চলবাসি

ব্রিজ আছে রাস্তা নেই, ফলে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বেলকা ইউনিয়নের চরাঞ্চলবাসি দুর্ভোগ চরমে। বন্যার   পানির স্রোতে  প্রতিবছর বাশের সাঁকো ভেসে যাওয়ার কারণে এলাকাবাসির দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৭ সালে উপজেলার বেকরির চর গ্রামের একতা বাজার-বিরহিম খেয়াঘাট সড়কে ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়।

নির্মাণের ৬ মাস পরই বন্যার পানির  স্রোতে ব্রিজটির দুই পাশের সংযোগ সড়ক ধসে যায় এবং ব্রিজটির একপাশ দেবে যায়। তখন থেকে আজ পর্যন্ত ব্রিজটির সংযোগ সড়ক মেরামত করা হয়নি এবং ক্ষতিগ্রস্ত ব্রিজটির সংস্কার করা হয়নি। ফলে ওই পথে পথচারি এবং যান চলাচল সম্পন্নরুপে বন্ধ হয়ে গেছে।

চরাঞ্চলবাসির কোন কাজে আসছে না ব্রিজটি এখন। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের আওতায় ২৭ লাখ ৯৪ হাজার ২৫৬ টাকা ব্যয়ে বেকরির চর গ্রামের ইজ্জত আলীর বাড়ি সংলগ্ন সড়কে ৩০ ফুট দীর্ঘ আরসিসি ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়।

বেকরীর চর গ্রামের আবুল হোসেন জানান, ব্রিজটি নিমাণের পর পরই বন্যার  পানির স্রোতে দুই পাশের সংযোগ সড়ক ভেসে যায়। যার কারণে ব্রিজটির উপর দিয়ে চলাচল করা যাচ্ছে না। দুই বছর ধরে আমরা চরাঞ্চলবাসি আবারও কষ্ট করে নৌকা ও পায়ে হেঁটে নদী পারাপার হচ্ছি। বিশেষ করে স্কুল ও কলেজগামি শিক্ষার্থীদের অনেক কষ্ট হচ্ছে।

বেলকা ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম খলিলুল্যাহ জানান, ব্রিজটির দুই পাশের সংযোগ সড়ক মেরামতের জন্য কয়েকবার উপজেলা প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে তাগাদা দেয়া হলেও আজ তা মেরামত করা হয়নি। কর্মসৃজন প্রকল্পের মাধ্যমে ব্রিজের সংযোগ সড়ক মেরামতের পরামর্শ দিয়েছে পিআইও। কিন্তু কোন সমাধান হয়নি।

উপজেলা প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তা নুরুন্নবী সরকার জানান বন্যার  পানির স্রোতে ব্রিজটির সংযোগ সড়ক ভেসে গেছে। বরাদ্দ না থাকায় তা মেরামত করা সম্ভব হয়নি। তবে চেয়ারম্যানকে কর্মসৃজন প্রকল্পের মাধ্যমে ব্রিজের সড়কটি মেরামতের জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে।

শর্টলিংকঃ