বেতন না পেয়ে দুই শিক্ষকের মানবেতর জীবন যাপন

মহামারী করোনাকালেও বেতনভাতা না পাওয়ায় দীর্ঘ নয়মাস ধরে মানবেতর জীবন যাপন করছেন দুইজন শিক্ষিকা।তারা হলেন, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিরামপুর দ্বি-মুখী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র জ্যৈষ্ঠ শিক্ষিকা মাখসুদা বেগম ও সহকারি মোছাঃ চামেলী বেগম।

বিদ্যালয়ের অবঃ প্রধান শিক্ষক বাচ্চা মিয়া জানান, তিনি চাকরি থেকে অবসরে যাওয়ার পর মাকসুদা বেগম সিনিয়র জ্যৈষ্ঠতম শিক্ষিকা হিসেবে বিদ্যালয়ের দায়িত্ব পান।এসময় শিক্ষক শরিফুল ইসলাম অপর একজন জুনিয়র শিক্ষকের হাতে প্রধান শিক্ষক পদে গোপনে নিয়োগ নেন।

মাখসুদা বেগম জানান, তিনি এ বিষয়ে হাইকোর্ট রিট পিটিশন নং ৬১৮৪/২০ দায়ের করেন।এখন আদালতের নির্দেশে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন।এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলাম গত বছরের জুলাই থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত ওই দুই শিক্ষকের বেতনভাতায় সাক্ষর করছেন না।

এদিকে, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ওই দুই শিক্ষিকার বেতনভাতার আবেদনের প্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ইউএনও আবু মুসা জানান,বিষয়টি খতিয়ে দেখে জানানোর জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে বলা হয়েছে।মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার পারভেজ জানান, ইতিমধ্যে ওই শিক্ষকদের বকেয়া বেতনভাতা দেয়ার জন্য প্রধান শিক্ষককে বলা হয়েছে।শিঘ্রই তারা বেতনভাতা পাবেন বলে আশা করেন তিনি।অপরদিকে,বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আখতারুজ্জাম জানান, তাদের বেতন দিতে কোন বাধা নেই।তবে মামলা/মোকদ্দমা মুক্ত হলে ভাল হয়।

শর্টলিংকঃ