বাস কাউন্টারে স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে নিরাপদ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বুধবার থেকে গাইবান্ধায় গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়ায় নির্ধারিত আসনের অর্ধেক যাত্রী বহনের সরকারি নির্দেশনা কার্যকর হয়েছে। কিন্তু বাস কাউন্টারগুলোতে উপচে পড়া ভীড় পরিলক্ষিত হলেও ছিল না কোনো রকম স্বাস্থ্য বিধির বালাই।

এব্যাপারে গাইবান্ধা-রংপুর রুটে ৯০ টাকার ভাড়া ১৬০ টাকা নেয়া হচ্ছে বলে যাত্রীরা জানিয়েছেন। এই ভাড়া বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে যাত্রীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ পরিলক্ষিত হয়।

সরেজমিনে গাইবান্ধার আন্তঃজেলা বাস কাউন্টারগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, যাত্রীদের জটলা। তাদের মধ্যে কারো কারো মুখে মাস্ক থাকলেও অধিকাংশরই মুখে ছিল না মাস্ক। তারা নিরাপদ সামাজিক দূরত্ব না মেনেই টিকিট সংগ্রহ করছিল। কাউন্টার থেকে আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বাসগুলো ছেড়ে গেলেও নির্ধারিত গন্তব্যের মধ্যবর্তী স্টপেজগুলো থেকে অতিরিক্ত যাত্রী নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জেলা বাস-মিনিবাস-কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আশরাফুল আলম বাদশা বলেন, স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন তদারকিতে শ্রমিক ইউনিয়নের একটি টিম কাজ করছে। পরিবহনের কোন শ্রমিক সরকারি নির্দেশনা লঙ্ঘন করে জেল জরিমানার শিকার হলে তার দায় শ্রমিক ইউনিয়ন নেবে না বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে জেলা মটর মালিক সমিতির সভাপতি কাজী মকবুল হোসেন মুকুল জানান, কাউন্টারগুলোতে সামাজিক দূরত্ব মেনে এবং মাস্ক পরিহিত অবস্থায় যাত্রীদের টিকিট সংগ্রহ করার জন্য মালিক সমিতির পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। মধ্যবর্তী স্টপেজগুলোতে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের বিষয়টি চেকপোস্ট বসিয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদারকি করা হচ্ছে।

শর্টলিংকঃ