প্রিয়া হত্যা মামলার মুল আসামির স্বীকারোক্তি

 বামে  মোমিন মিয়া  এবং  ডানে  নিহত প্রিয়া

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে স্কুলছাত্রী জেসমিন আকতার প্রিয়াকে (১৩) অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যা মামলার মুল আসামি আব্দুল মোমিন মিয়া আদালতে স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট (চৌকি) আদালতের বিচারক পার্থ ভদ্র জবানবন্দি গ্রহন শেষে তাকে গাইবান্ধা জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে বুধবার মধ্যরাতে মোমিনকে তার শ্বশুর বাড়ী পৌর এলাকার জঙ্গলমারা থেকে গ্রেফতার হয়।পরের দিন বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি গ্রহনের আবেদনসহ মোমিনকে আদালতে নেয় পুলিশ।সে পৌর এলাকার বোয়ালিয়া গ্রামের নয়াপাড়ার রহিম উদ্দিনের ছেলে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) আফজাল হোসেন ‘দশের খবর’ কে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। মোমিন অষ্টম শ্রেনির ছাত্রী জেসমিন আকতার প্রিয়াকে ভালবাসতো।এক পর্যায়ে সে বাড়ী থেকে প্রিয়াকে তুলে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করে ঘর সংসার করছিল। সে প্রিয়াকে হত্যা করেনি-প্রিয়া করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। আদালতকে ১৬৪ ধারার দেওয়া স্বীকারোক্তিতে মোমিন এ সব কথা উল্লেখ করেন বলে নিশ্চিত করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এদিকে নিহত প্রিয়ার মা মরিয়ম বেওয়ার অভিযোগ,তার মেয়ে করোনায় মারা যায়নি। প্রিয়াকে অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যা করা হয়েছে। মেয়ে অপহরণের ঘটনায় পুলিশ মামলা নিলে হয়তো প্রিয়া আজও বেঁচে থাকতো বলে মনে করেন এই মা!

শর্টলিংকঃ