তিনদিনের হাড় কাঁপানো শীতে কাহিল রাজশাহীর জনজীবন

রাজশাহী মহানগরীতে ঘন কুয়াশা আর তীব্র শীতে কাহিল হয়ে পড়েছে জনজীবন। কাঁচের মতন স্বচ্ছ শিশির বিন্দুগুলো ভর করেছে সবুজ প্রকৃতিতে। টানা তিন দিনের তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশার কারনে শিশু ও বয়স্ক মানুষ সর্দ্দি জ্বরসহ নানা রোগে অসুস্থ্য হচ্ছে । শীতার্থরা খড়-কুঠায় আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছেন।

গতকাল শুক্রবারের তুলনায় আজ শনিবার দিনের তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছে। শুক্রবার দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজ তাপমাত্রা বেড়ে ১১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠলেও শীতের প্রকোপ কমেনি। ভোর থেকে কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে রাজশাহী মহানগর। ভোরে সূর্যোদয় হলেও তার কিরণ বিকোশিত হতে পারেনি শীতল এই প্রকৃতিতে। দুপুরেও রাজশাহীতে বিরাজ করছে ভোরের আভা।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ পর্যবেক্ষক আনোয়ারা বেগম জানান, ঘন কুয়াশার কারণে সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। শনিবার ভোর ৬ টায় রাজশাহীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগে শুক্রবার রেকর্ড করা হয়েছিল ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সকাল ৬টায় বাতাসের আদ্রতা ছিল ৮৯ শতাংশ।

রাজশাহীর ভারপ্রাপ্ত আবহাওয়া কর্মকর্তা আবহাওয়াবিদ কামলা উদ্দিন বলেন, এ সময় কুয়াশা পড়া অনেকটায় স্বাভাবিক। সাধারণত এই কুয়াশা কাটলে শীতের তীব্রতা বাড়ে। ফলে শীত আরও বাড়বে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

শর্টলিংকঃ