বিক্ষোভে ফেটে পড়েছে ঢাবি

ঢাবিছাত্রী ধর্ষণের পর হত্যার চেষ্টারকথা স্বীকার করেছে মজনু

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) একছাত্রী ক্যাম্পাস থেকে বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার পথে রাজধানীর কুর্মিটোলায় এলাকায় তাকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে গ্রেফতারকৃত মজনু (২৮) নামে এক যুবক। আজ বুধবার বেলা ২টার দিকে কারওয়ানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন এ কথা জানানো হয়।
র‌্যাব জানায়, এর আগে মঙ্গলবার রাতে গাজীপুরের টঙ্গী থেকে সন্দেহমুলক ভাবে মজনুকে আটক করা হয়। তার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে ঢামেকে ছাত্রীর কাছে ওই যুবকের ছবি পাঠানো হয়। ওই ছাত্রী নিশ্চিত করার পর তাকে গ্রেফতার দেখায় র‌্যাব। এছাড়াও ওই ছাত্রীর খোয়া যাওয়া ব্যাগ ও মুঠোফোনসহ অন্যান্যসরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।
র‌্যাব কর্মকর্তা জানান, গ্রেফতার মজনুর বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধিসহ একাধিক নারীকে ধর্ষণসহ ছিনতাইয়ের অভিযোগ রয়েছে। আরএসব অভিযোগে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।

ধর্ষণের শিকার ছাত্রী বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন। ধর্ষণের এই ঘটনায় বিক্ষোভে ফেটে পড়েন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ঘটনার প্রতিবাদ ও বিচার দাবিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে সমাবেশ-মানববন্ধন হয়।
প্রসঙ্গত, গত রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে ওই ছাত্রী বান্ধবীর বাসায় যাচ্ছিলেন। কুর্মিটোলা বাসস্টেশনে নামার পর তাকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি অনুসরণ করতে থাকে। মাঝপথে তাকে ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। রাত ১০টার দিকে ওই ছাত্রীর জ্ঞান ফিরলে তিনি নিজেকে একা নির্জন স্থানে আবিষ্কার করেন। পরে সেখান থেকে সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে বান্ধবীর বাসায় যান। তারপর রাত ১২টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করান তার সহপাঠীরা। এ ঘটনায় ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করা হয়েছে।

শর্টলিংকঃ