গোবিন্দগঞ্জে ডায়রিয়ায় অসুস্থ্য শিশুর চিকিৎসা চলছে মায়ের কোলে

এক বছরের শিশু রুহুল আমিন। সে ৩ থেকে ৪ দিন আগে শিশু ডায়রিয়ায় অসুস্থ্য হয়।প্রথমে তার চিকিৎসা করানো হয় স্থানীয় এক পল্লী চিকিৎসকের নিকট।কিন্তু শিশু রুহুল আমিন সুস্থ্য হয়নি। শেষে পর্যন্ত তাকে শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে নেওয়া হয় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

রাত সাড়ে ৮ টার দিকে ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা গেল এক ভিন্ন চিত্র। শিশুটি তার মায়ের কোলে শুয়ে থাকা অবস্থায় স্যালাইন চলছে।রুহুল আমিনের মা রেহেনা বেগম “দশের খবর ডটকম”কে জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেঝেতে শুয়ে রাখলে তার সন্তান আর অসুস্থ্য হতে পারে। তাই কষ্ট হলেও সন্তানকে কোলে রেখেই চিকিৎসা নিচ্ছি। তার বাড়ী বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মহানগর গ্রামে।

সূত্রমতে, ৫০ শয্যার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অধিকাংশ সময় রোগী ভর্তি থাকেন প্রায় শতাধিক। বেড সঙ্কটে রোগীরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেঝেতে চিকিৎসা নিয়ে থাকেন।

এদিকে, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার রাত ১২ টা থেকে শুক্রবার রাত ৮ টা পর্যন্ত প্রায় ২০ ঘন্টায় নারী ও শিশুসহ ১৩ ব্যক্তি ডায়রিয়ায় অসুস্থ্য হয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছেন। এদের মধ্যে শিশুর সংখ্যা ১০ জন। জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আবু রায়হান বলেন,শীত ও ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় বিশেষ করে শিশুরা ডায়রিয়ায় বেশি অসুস্থ্য হচ্ছে।

শর্টলিংকঃ