টানা শৈতপ্রবাহ ও শীতের তীব্রতায় স্থবির জনজীবন

রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়,কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাটসহ রংপুর বিভাগের কয়েকটি জেলায় মৃদ্যু শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত রয়েছে। শুক্রবার তাপমাত্রা একটু বাড়লেও তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশার কারনে তা অনুভূত হচ্ছেনা। এর মধ্যেই দেশের অন্যান্য অঞ্চলে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শীত বেড়েছে।

আবহাওয়াবিদ আফতাব উদ্দিন   এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান,  মধ্যরাতের আগেই বৃষ্টি বন্ধ হতে পারে। আগামি ৪৮ ঘন্টা তাপমাত্রাও কিছুটা নেমে শীত কিছুটা বাড়বে। সারা দেশে যে বৃষ্টি হচ্ছে সেটা রাতে নাও থাকতে পারে। তবে শনিবার চট্টগ্রাম ও সিলেট অঞ্চলের কোথাও কোথাও  সামান্য বৃষ্টি হতে পারে। আজ সকাল ৯টায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে তেঁতুলিয়ায়, ৯.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আফতাব উদ্দিন বলেন, ‘রংপুর বিভাগের পঞ্চগড়, দিনাজপুর ও নীলফামারি জেলায় চলমান মৃদু শৈত্যপ্রবাহ আগামী ২৪ ঘণ্টা অব্যাহত থাকবে। সেই সঙ্গে  শৈত্যপ্রবাহের পরিধি কিছুটা বাড়তে পারে। ‘গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির কারণে সারা দিনই কুয়াশার চাদরে ঢেকে আছে সারা দেশ। উত্তরাঞ্চলে কনকনে শীতে ভোগান্তিতে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ  ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন না। ফলে ঢাকার রাস্তাঘাট অনেকটাই ফাঁকা।

ঢাকা আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং খুলনা, বরিশাল, ঢাকা, ময়মনসিহং ও রাজশাহী বিভাগের দুয়েক জায়গায় হালকা বা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে।

শর্টলিংকঃ