চলমান কঠোর লকডাউন আরও বাড়তে পারে

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ সংখ্যক ২৪৭ জনের মৃত্যু এবং ১৫ হাজার ১৯২ জনের শনাক্ত হয়েছে। এমন পরিস্থিতে দেশে চলমান কঠোর লকডাউন বাড়ানোর পাশাপাশি আরো কঠোরভাবে বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত আসতে পারে। আজ এ ব্যাপারে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে বৈঠক হতে যাচ্ছে ।

সোমবার (২৬ জুলাই) মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, মঙ্গলবার দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এই বৈঠক হবে। তিনি বলেন, কালকে আমরা মিটিং করব। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুর দেড়টায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে সচিবালয়ে বড় মিটিং অনুষ্ঠিত হবে।

দেশে দৈনিক রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু দুটো ক্ষেত্রেই রেকর্ড গড়ার দিনে এই সিদ্ধান্ত জানালেন তিনি। কালকের বৈঠকের পর লকডাউন আরও কঠোরভাবে বাস্তবায়ন এবং আরেক দফা বাড়বে কিনা সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

তিনি বলেন, হাসপাতালের সিট বাড়িয়ে, ডাক্তার বাড়িয়ে এগুলো (করোনা) নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। ইউরোপের দেশগুলো দেখেন, স্পেন, ডেনমার্ক, সুইডেন, নরওয়ে, জার্মানি। জার্মানিতো অসহায়ভাবে পড়েছিল। ইন্ডিয়ার অবস্থা দেখেন, কি হয়েছে। একমাত্র মানুষ যদি মাস্ক না পরে, দূরুত্ব না মানে ‌‘ইট উইল বি অলমোস্ট ইমপসিবল’।

আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, মক্কা-মদিনা দেখেন, মদিনার ভেতরে ৩ ফিটের মধ্যে কাউকে আসতে দেবে না। মক্কাতে আপনি খেয়াল করে দেখেছেন কিনা, নামাজ বা তাওয়াফ করে, কি রকম ডিসিপ্লিন মেনে চলছে মানুষ। সেজন্যই সৌদি আরব নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছে।

বিধিনিষেধেও বেসরকারি অনেক অফিস খোলা আছে- এ বিষয়ে তিনি বলেন, আমার সঙ্গে রবিবারও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশের অ্যাডিশনাল আইজির সঙ্গে কথা হয়েছে, অফিসগুলোর কিছু মেশিন চালু রাখতে হয়। ওই টেকনিক্যাল (কর্মী) যায়-আসে। অনেক জিনিস আছে, সার্ভিসিং করতে হয়, এগুলো তারা করছে। এগুলো আমাদের মোবাইল কোর্ট চেকিং করতেছে।

এ বৈঠকে অংশ নিতে এর মধ্যেই স্বাস্থ্যমন্ত্রী, তথ্য যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী, তিন বাহিনী প্রধান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতর, পুলিশ মহাপরিদর্শক, বিজিবি মহাপরিচালক, নির্বাচন কমিশনের সচিব, বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে গত ২৩ জুলাই থেকে কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। এই লকডাউন থাকবে আগামী ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত।

শর্টলিংকঃ