ঘুরে দাড়াচ্ছে খুলনার নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেট ॥ এমডি

ঘুরে দাড়াচ্ছে নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেট লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটি শুরু করতে যাচ্ছে প্লটিং ব্যবসা ও ড্রেজিং প্রকল্পের কাজ। ইতিমধ্যেই গ্রাহকদের সাথে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বৈঠকের পর কাটতে শুরু করেছে স্থবিরতা। সব ধরণের সংশয় কাটিয়ে প্রতিষ্ঠানটি স্বাভাবিক ধারায় ফিরতে শুরু করেছে। একান্ত স্বাক্ষাৎকারে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তালুকদার আব্দুল মান্নান এ কথা বলেন।

নিউ বসুন্ধরা রিয়েল এস্টেট লিমিটেড’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক তালুকদার আব্দুল মান্নান বলেন, খুলনা, বাগেরহাট ও পিরোজপুর জেলার ২১ হাজার গ্রাহকের কাছ থেকে আড়াই শত কোটি টাকার বিনিয়োগ নেওয়া হয়েছে। মহল বিশেষ এটিকে ‘২ হাজার-৪ হাজার’ কোটি টাকা বলে অপপ্রচার চালিয়ে স্থানীয় প্রশাসন, দুদক, বাংলাদেশ ব্যাংক ও রাজনৈতিক মহলে বিভ্রান্তি ছড়ায়। এ কারণে টাকা ফেরত পাওয়া নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে এক ধরণের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা তৈরি হয়। যার সাথে বাস্তবতার কোন মিল নেই।

তিনি বলেন, অপপ্রচারের কারণে সাময়িক সংকট তৈরি হলেও তা আমরা কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছি। কারণ গত দশ বছর ধরে গ্রাহকদের বিনিয়োগকৃত অর্থে প্রতিষ্ঠানটির কেনা তিন শত বিঘা জমির এখন বাজার মূল্য হাজার কোটি টাকা। যা গ্রাহক আমানতের চেয়ে চার গুণ বেশি। আমরা এখন গ্রাহকদের সমুদয় বিনিয়োগকৃত টাকা পর্যায়ক্রমে আগামী ছয় মাসের মধ্যে পরিশোধ করে দেবো। এরপরই প্রতিষ্ঠানটিকে নিজস্ব বিনিয়োগে ফিরিয়ে আনা হবে।

তিনি আরও বলেন, আমরা খুলনা ও বাগেরহাটে কয়েকটি সাইট নির্ধারণ করেছি। যেখানে দ্রুত সময়ের মধ্যে প্লটিং ব্যবসা শুরু করা হবে। সেই সাথে সরকারের কয়েকটি বিভাগের সাথে আমাদের ড্রেজিং প্রকল্পের চুক্তি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এর মধ্যদিয়ে প্রতিষ্ঠানটির অবস্থান আরও শক্ত ও সুদৃঢ় হবে।

তিনি এ সার্বিক কাজের জন্য গ্রাহকদের সহযোগিতা চান। পাশাপাশি গ্রাহক স্বার্থ রক্ষার জন্য সব মহলের সু-দৃস্টি কামনা করেন।

শর্টলিংকঃ