গাইবান্ধায় স্কুল ছাত্রীসহ দুজনের আত্মহত্যা

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় গতকাল মঙ্গলবার দুটি পৃথক ইউনিয়নে দুজনের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। ছাপড়হাটী ইউনিয়নের দক্ষিণ মরুয়াদহ গ্রামে শয়নঘরের ধর্ণার সাঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে রুবেল মিয়া (২২) ও কঞ্চিবাড়ি ইউনিয়নের দক্ষিণ কালীর খামার গ্রামে মুক্তা আক্তার (১৫) গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার বিকালে দক্ষিণ মরুয়াদহ গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে রুবেল মিয়া নিজের শয়নঘরের ধর্ণার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। রুবেল মাদকদ্রব্যসহ বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত থাকায় তাঁর স্ত্রী কয়েক দিন আগে বাবার বাড়ি চলে যান। এরই একপর্যায়ে রুবেল মিয়া আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন বলে পরিবারের ধারণা।

অন্যদিকে, মঙ্গলবার ভোরে দক্ষিণ কালীর খামার গ্রামের গোলাম মোস্তফার মেয়ে ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী মুক্তা বেগমকে তাঁর পছন্দের ছেলের সঙ্গে বিয়ে না দেয়ার অভিমানে শয়নঘরের ধর্ণার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন বলে পরিবারের লোকজন জানান। সুন্দরগঞ্জ থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শক (ওসি, তদন্ত) বুলবুল ইসলাম জানান, দুই ঘটনাস্থলেই পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

শর্টলিংকঃ