গাইবান্ধায় মরিচের কেজি একশ ত্রিশ টাকা

গাইবান্ধার হাটবাজারগুলোতে কাঁচা মরিচের দাম বেড়েই চলেছে। গত তিন দিনের ব্যবধানে প্রতিকেজি মরিচের দাম ৯০ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে ৪০ টাকার স্থলে ১৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা জানান, গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে মরিচের খেত নষ্ট হওয়ায় এবং উৎপাদন কমে যাওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার (১৮ জুলাই/২০২০) সকালে জেলা সদর, সুন্দরগঞ্জ, পলাশবাড়ী ও গোবিন্দগঞ্জ পাইকারি বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায় চাহিদার তুলনায় বাজারে সরবরাহ কম হওয়ায় কাঁচা মরিচের দাম বেড়েই চলেছে। গোবিন্দগঞ্জ পৌর শহরের পাইকারি বাজারে গিয়ে দেখা যায় শনিবার সকালে মাত্র ৫ থেকে ৭ জন কৃষক বিক্রির জন্য কাঁচা মরিচ নিয়ে বাজারে আসছেন। তা-ও আবার পরিমানে অনেক কম। তারা প্রতিকেজি মরিচের দাম ১১০ টাকা হাকছেন। বাজারে কাঁচা মরিচ বিক্রি করতে আসা উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের মারিয়া গ্রামের কৃষক এনামুল হক (৩৫) বলেন, তিনি একবিঘা (৩৩ শতক) জমিতে মরিচ চাষ করছিলেন। কিন্তু টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে মরিচের খেত পানিতে ডুবে গেছে। এজন্য মরিচের দাম বেড়েছে।

আব্দুল মান্নান (৪৫) নামে পৌর শহরের পান্থাপাড়ার আরেক কৃষক জানান, তিনি কুড়িশতক জমিতে মরিচের চাষ করেছিলেন। কিন্তু বৃষ্টিতে পানি জমে খেতে পচারি লেগে মরিচের গাছের ক্ষতি হয়েছে। এ কারণে বাজারে চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কমে যাওয়ায় স্বাভাবিক ভাবেই মরিচের দাম বেড়েছে। খুচরা ব্যবসায়ী লোকমান হোসেন জানান, দিন তিন দিনেক আগে আমরা ৯০ টাকা কেজি দরে যে মরিচ বিক্রি করেছি। এখন সেই মরিচ ১৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, শুধু মরিচ নয়, বৃষ্টির কারণে সব ধরণের সবজির দামও বেড়েছে।

শর্টলিংকঃ