গাইবান্ধার শকুনগুলোর চিকিৎসা চলছে ইকোপার্কে

গাইবান্ধা সদর উপজেলার ফলিয়া গ্রাম থেকে উদ্ধার করা বিশাল আকারের পাঁচটি শকুন  বৃহস্পতিবার ইকোপার্কে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় বনবিভাগ উপজেলার ফলিয়া গ্রামের একটি বটগাছের নিচ থেকে শকুন ৫টি উদ্ধার করে। কিন্তু শকুনগুলো অসুস্থ অবস্থায় ছিল। উদ্ধার পাঁচটি শকুন দিনাজপুর বনবিভাগ কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার তাদের ইকোপার্কে নিয়ে যায়।

গাইবান্ধা জেলা বনবিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুছ সবুর হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, পশ্চিম দিক থেকে উড়ে আসা এক ঝাঁক শকুন ওই গ্রামের একটি বটগাছে আশ্রয় নেয়। এ সময় হঠাৎ করে পাঁচটি শকুন দুর্বল হয়ে গাছ থেকে নিচে পড়ে যায়। পরে স্থানীয়দের খবরের প্রেক্ষিতে শকুনগুলো উদ্ধার করা হয় ।

তিনি জানান, সম্ভবত শকুনগুলো অনেক দূর থেকে এখানে উড়ে আসছিল। প্রচণ্ড শীত ও দীর্ঘ পথ উড়ে আসার ক্লান্তিজনিত কারণে শকুনগুলো ওই গাছটিতে আশ্রয় নেয়। এর মধ্যে দুর্বল ও অসুস্থ পাঁচটি শকুন গাছ থেকে হঠাৎ নিচে পড়ে যায়।

শর্টলিংকঃ