তিন উপজেলায় কালবৈশাখী ঝড়ে মৃত্যু ১০

গাইবান্ধা সদরসহ তিনটি উপজেলায় ঘন্টাব্যাপী কাল বৈশাখী ঝড়ে নারী ও শিশুসহ অন্তত দশজনের মৃত্যু হয়েছে। জেলা পুলিশের একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা আজ সোমবার দুপুরে “দশের খবর ডটকম”কে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানায়, এর আগে রোববার বেলা আড়াইটা থেকে বিরতিহীনভাবে সাড়ে তিনটা জেলা সদর পলাশবাড়ী ও ফুলছড়ি উপজেলার ওপর দিয়ে এ ঝড়ো-হাওয়া বয়ে যায়।

মৃতরা হল-গাইবান্ধা সদর উপজেলার কিশামত গ্রামের মিঠু মিয়ার স্ত্রী সাহেরা বেগম (৪০), রিফায়েতপুর গ্রামের খগেন্দ্রর স্ত্রী জোসনা রানি (৬৫), রেজু মিয়ার স্ত্রী আরফিরা বেগম (২৮), সিঙ্গা গ্রামের হিরু মিয়ার ছেলে মনির (৫), পলাশবাড়ী উপজেলার মোস্তফাপুর গ্রামের মৃত আব্বাস আলীর ছেলে আব্দুল গোফফার (৪৪),জাকেরপাড়া গ্রামের ইউনুস মিয়ার স্ত্রী জাহানারা বেগম (৪২),কুমেতপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের স্ত্রী মমতা বেগম (৬৫), ফুলছড়ি উপজেলার কাতলামারী গ্রামের বিটুল মিয়ার স্ত্রী শিমুলি আকতার (২৬), ডাকাতিয়া গ্রামের মৃত বারেক আলীর ছেলে হাফিজ উদ্দিন ও কিশামত হলদিয়া গ্রামের ছলেমান আলীর স্ত্রী ময়না বেগম (৬০)।

এছাড়াও ঝড়ো হাওয়ায় গাইবান্ধা সদর ,পলাশবাড়ি ,সুন্দরগঞ্জে ,ফুলভড়ি ,সাঘাটা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে শহশ্রাধিক ঘরবাড়ি, গাছপালা ভেংগে পড়ে । বিদ্যুতের খুঁটিসহ বিভিন্ন ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। গাছসহ গাছের ডালপালা রাস্তারউপর পড়ে থাকায় যানবাহন চলাচল সাময়িক ব্যহত হয়। বিদ্যুতের তার ছিড়ে যাওয়ায় শহরসহ বিভিন্ন এলাকায় আজ সোমবার দুপুর বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

শর্টলিংকঃ