কুষ্টিয়ায় উপসর্গে মৃত্যু ৬ পটুয়াখালীতে শনাক্ত ১৮

গত চব্বিশ ঘন্টায় প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৬ জন । অন্যদিকে পটুয়াখালীতে একই সময়ে ১৮জনকে শনাক্ত করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।তবে কেউ মারা যায়নি। আমাদের কুষ্টিয়া ও পটুয়াখালী প্রতিনিধির পাঠানো তথ্য নিয়ে একটি ডেস্ক রিপোর্ট ।

কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ায় করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার সকাল ৯টায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের পরিসংখ্যান কর্মকর্তা মো. মেজবাউল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত এবং উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর পাশাপাশি রোগী ভর্তির চাপও আগের চেয়ে কিছুটা কমেছে। আক্রান্ত এবং উপসর্গ নিয়ে রবিবার পর্যন্ত ১৪০ জন রোগী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাই ১০৬ জন। আর উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন আরো ৩৪ জন।

এদিকে কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ২১৬ টি নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে নতুন করে ৪২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৪৪ ভাগ। জেলায় এ পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা হচ্ছে ১৭ হাজার ২০৭ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৪ হাজার ৬৪৪ জন। এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে জেলায় মারা গেছেন ৬৯৮ জন।

পটুয়াখালী : জেলায় গত একদিনে করোনায় নতুন করে ১৮ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তবে গত তিন দিনে পটুয়াখালী জেলায় করোনা আক্রান্ত কোনো রোগী মারা যায়নি।

সিভিল সার্জন ডাক্তার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম শিপন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার সবকটি উপজেলায় ১৫৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৮ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে।

পটুয়াখালীতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃতের সংখ্যা ১০৭ জন। বর্তমানে মোট এক হাজার ২১০ জন রোগীর মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৫৪ জন এবং বাড়িতে রয়েছেন এক হাজার ১৫৬ জন। এ পর্যন্ত ৩৪ হাজার ৪১০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন সিভিল সার্জন শিপন।

শর্টলিংকঃ