কানাডায় ঠাঁই মেলেনি মন্ত্রীত্ব হারানো মুরাদের

নারীর প্রতি অশোভন মন্তব্য করে মন্ত্রীত্ব হারানো বিতর্কিত সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে কানাডায় প্রবেশ করতে দেয়নি দেশটির বর্ডার সার্ভিস এজেন্সি। টরেন্টোর পিয়ারসন এয়ারপোর্ট থেকে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ফিরতি ফ্লাইটে তাকে দুবাইতে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

মুরাদ আমিরাতের একটি ফ্লাইটে শুক্রবার স্থানীয় সময় ১.৩১ মিনিটে টরন্টো পিয়ারসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন। পরে বাংলাদেশে নারীদের হয়রানি, অপমান এবং নির্যাতনের কারণে তাকে ইমিগ্রেশন নানান বিষয়ে জিজ্ঞাসা করে। সেই সঙ্গে বিভিন্ন ভিডিও, ছবি ও সংবাদ এর বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়। সেই সঙ্গে তিনি কি কারণে কানাডায় এসেছেন তাও জানতে চাওয়া হয়। কিন্তু কোন যুক্তি যুক্ত কারণ দেখাতে ব্যর্থ হন মুরাদ। এছাড়া তার সরকারী ও ব্যক্তিগত পাসপোর্ট জটিলতার বিষয়েও কানাডা ইমিগ্রেশন জানতে চায়। এর কোন সঠিক উত্তর দিতে না পারায় মুরাদকে কানাডা পিয়ারসন এয়ারপোর্ট হতে ফেরত পাঠানো হয়।

মুরাদ হাসান গত সেপ্টেম্বর ২০২১-এ সরকারী সফরে কানাডার- টরণ্টো, মন্ট্রিয়ল, অটোয়া, কেল গেরি, ভেঙ্কুভার সহ বিভিন্ন অঙ্গ রাজ্যে সফর করেন। এ সময়ে তিনি প্রবাসী বাংলাদেশী ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সভায় অংশ নেন।

অশালীন, শিষ্টাচারবহির্ভূত, নারীর প্রতি চরম অবমাননাকর বক্তব্য প্রদান এবং এক চিত্রনায়িকার সঙ্গে অশালীন ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর গত সোমবার জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য মুরাদ হাসানকে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর মঙ্গলবার তিনি পদত্যাগ করেন। সেদিন রাতেই তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

শর্টলিংকঃ