করোনায় ঝুলে আছে ২০ হাজার ড্রাইভিং লাইসেন্স

করোনা পরিস্থিতির কারণে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) রাজশাহী শাখার ২০ হাজারেরও বেশি গ্রাহকের ড্রাইভিং লাইসেন্স আটকে আছে। ফলে স্মার্টকার্ড ছাপানো বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন গ্রাহকরা। লাইসেন্সের পরিবর্তে বিআরটিএ থেকে দেয়া হচ্ছে অস্থায়ী অনুমতিপত্র। এই অনুমতিপত্রের মেয়াদ শেষ হলে আবার বাড়ানো হচ্ছে মেয়াদ, কিন্তু মিলছে না ড্রাইভিং লাইসেন্স। অনেকেরই বারবার অনুমতিপত্রের মেয়াদ বাড়াতে হচ্ছে। এতে ভোগান্তিতে পড়ছে গ্রাহকেরা। তবে কর্তৃপক্ষ বলছে এটি সারাদেশের সমস্যা। এটি সমাধান হতে শুরু করেছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই এগুলো সমাধান হয়ে যাবে।

রাজশাহী বিআরটিএ সুত্র হতে জানা য়ায়, রাজশাহীতে বর্তমানে ২০ হাজারেরও বেশি গ্রাহকের ড্রাইভিং লাইসেন্স আটকে আছে। এছাড়া করোনার কারণে বন্ধ হয়েছে ৪২টি পরীক্ষা। এসব পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেনি ৮৪০০ জন। দীর্ঘদিনে জট লেগে থাকায় এ সমস্যার সহসাই সমাধান হচ্ছে না। তবে স্মার্টকার্ড প্রিন্ট করার জন্য নতুন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে গত জুলাই মাসের শেষ দিকে চুক্তি হয়েছে। আগামী ১৮ সপ্তাহের মধ্যে তাদের কাজ শুরু করার কথা রয়েছে।

এবিষয়ে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) রাজশাহী সার্কেলের সহকারি পরিচালক এস এম কামরুল ইসলাম বলেন, শুধু আমাদের এখানেই এই অবস্থা নয়। এখানকার মত সারাদেশেরই একই অবস্থা। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি না থাকায় এই সমস্যা হয়েছে। বর্তমানে আমাদের চুক্তি হচ্ছে। আগামীতে এটি সমাধান হয়ে যাবে। এছাড়া করোনার কারণে অনেক পরীক্ষা বন্ধ হয়ে গেছে। সেগুলো পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা হবে।

শর্টলিংকঃ