কঠোর লকডাউনে প্রথম দিন মহাসড়কের চিত্র!

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় দ্বিতীয় দফায় কঠোর লকডাউনের দ্বিতীয় দিন শুক্রবার যথাযথ ভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে। তবে প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, বেলা দুপুরের দিকে থানা মোড়ে বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের দুই একটি গণপরিবহন চলাচল করতে দেখা গেছে।

জানা গেছে, মহামারি করোনা ঠেকাতে দ্বিতীয় দফায় ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা দেয় সরকার।ঘোষণা অনুযায়ি আজ শুক্রবার সকাল থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত সারাদেশে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ সকল শিল্প কলকারখানা পাশাপাশি গণপরিবহন বন্ধ থাকবে।

প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, আজ শুক্রবার দুপুরের দিকে,গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বগুড়া-রংপুর মহাসড়কে ২/১টি গণপরিবহন স্বল্প সংখ্যক যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে।

সৌখিন পরিবহনের একযাত্রী জানান, কঠোর লকডাউনে ৩ গুন ভাড়া দিয়ে একরকম করে আসলাম।পথিমধ্যে সিগনাল দেওয়া পুলিশের হাত থেকে ছাড়া পাওয়া গেলেও জম হয় র‌্যাব ও সেনাবাহিনী। এ কারনে খুব হিসাব নিকাশ করে গাড়ী চালান ড্রাইভার।

সকালে অধিকাংশ রাস্তাঘাট ছিল জনশূন্য। মাঝে মাঝে কিছু প্রাইভেটকার ও অ্যাম্বুলেন্সকে দ্রুত গতিতে ছুটে যেতে দেখা যায়। বিভিন্ন এলাকায় ব্যারিকেড বসিয়ে পুলিশ সদস্যদেরকে প্রাইভেটকার ও অন্যান্য যানবাহনে তল্লাশি ও জিজ্ঞাসাবাদ করতে দেখা গেছে।

রিকশা ও ভ্যানে করে মানুষকে চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে। তারা গ্রামের বাড়ি থেকে ফিরেছেন। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় তারা রিকশা ও ভ্যানে করে বাসায় ফিরছেন।

তবে আগের তুলনায় এবার কঠোর বিধিনিষেধ হবে। কারণ বারবার বিধিনিষেধ দিয়ে তা কঠোরভাবে পালিত না হলে করোনা পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে না বরং অর্থনৈতিক অবস্থা আরও খারাপ হবে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, এবারের লকডাউন আগের লকডাউনগুলোর তুলনায় কঠোর থেকে কঠোরতর হবে।

শর্টলিংকঃ