উপজেলা ভিত্তিক হবে মডেল ফার্মেসী: ডিজি

প্রত্যেকটি উপজেলায় ১টি করে মডেল ফার্মেসী ও মডেল মেডিসিন শপ চালু করা হবে উল্লেখ করে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল মোঃ মাহবুবুর রহমান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি উপজেলায় ১টি করে মডেল ফার্মেসী ও মডেল মেডিসিন সপ চালু করার কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ৩৭ হাজারের বেশি মডেল মেডিসিন শপ ও ৫০ হাজার মডেল ফার্মেসী স্থাপন করা হয়েছে। আগামী ২ বছরের মধ্যে ১ লাখ ৫১ হাজার ফার্মেসীকে মডেল মেডিসিন ফার্মেসী ও মডেল মেডিসিন শপ স্থাপন করা হবে।

দিনাজপুর হাউজিং মোড়স্থ পর্যটন মোটেল অডিটোরিয়ামে “মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশে মডেল ফার্মেসী ও মডেল মেডিসিন শপ এর প্রয়োজনীয়তা ও সম্ভাবনা” শীর্ষক আলোচনা এবং নকল, ভেজাল, আনরেজিস্টার্ড ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ প্রতিরোধে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথাগুলো বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের ডিজি আরও বলেন, দেশের প্রত্যেকটি ফার্মেসীতে ১ জন করে ফার্মাসিষ্ট রাখতে হবে। আমি যোগদানের পর ফার্মাসিষ্ট তৈরীর ব্যাপারে কাজ করে যাচ্ছি। বাংলাদেশের ঔষধ ১৪৮টি দেশে রপ্তানী করা হচ্ছে। এটা একটা সাফল্যের বিষয়। বাংলাদেশের চাহিদা অনুযায়ী শতকরা ৯৮ শতাংশ ঔষধ দেশেই তৈরী হচ্ছে। আর ২ শতাংশ ঔষধ বিদেশ থেকে আমদানী করতে হচ্ছে। গত বছর ১৩৫ মিলিয়ন ডলার ঔষধ রপ্তানী করা হয়েছে। এই ঔষধ অষ্ট্রেলিয়া, আমেরিকা, ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশের আমাদের ঔষধ রপ্তানী করা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে দিনাজপুর জেলা কেমিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির সভাপতি মোমিনুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুস। এর আগে তিনি দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে ৫টি ও দিনাজপুর শহরের চারুবাবুর মোড়ে ৫টি মডেল ফার্মেসী ও মডেল মেডিসিন শপ উদ্বোধন করেন। এসময় তিনি মাস্ক বিতরণ করেন।

শর্টলিংকঃ